বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১, ১২:২৯ অপরাহ্ন

চলন্ত গাড়িতে মধ্যবয়সি নারীকে গণধর্ষণের পর গোপনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে হত্যা

মুক্ত স্বদেশ ডেস্কঃ
  • প্রকাশকালঃ বুধবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২১

চলন্ত গাড়িতে মধ্যবয়সি এক নারীকে গণধর্ষণ স্বীকার হয়েছেন। শুধু তাই নয় ধর্ষণের পর তার গোপনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে, পাঁজর ও পায়ের হাড় ভেঙে দেয়া হয়। রক্তপাত বন্ধ না হওয়ায় ওই নারীর নির্মম মৃত্যু হয়।

আনন্দবাজারর প্রতিবেদন অনুসারে, রোববার (৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ভারতের উত্তরপ্রদেশের বদায়ুঁ জেলার উঘৈতি থানা এলাকায় এই ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটেছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও খুনের মামলা দায়ের হলেও এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

সড়কের পাশ থেকে মধ্যরাতে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করা হয়। ধর্ষণের পর দুষ্কৃতীরা তাকে গাড়ি থেকে ফেলে দেয়। সেই অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে হাসপাতালে নেয়া হলেও রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় রাতেই তার মৃত্যু হয়।

নির্যাতিতার পরিবারের দাবি, অভিযোগ দায়ের করা সত্ত্বেও উঘৈতি থানার স্টেশন অফিসার (এসও) রবেন্দ্রপ্রতাপ সিংহ ঘটনাস্থলে যাওয়ার তাগিদ পর্যন্ত দেখাননি। বরং যেখান থেকে ওই মহিলাকে উদ্ধার করা হয়, সোমবার দুপুরে কেবলমাত্র একবার সেখানে ঢুঁ মেরে আসে পুলিশ। এমনকি তার ময়নাতদন্ত নিয়েও গড়িমসির অভিযোগ উঠেছে।

রোববার গভীর রাতে মৃত্যু হলেও, সোমবার বিকেলে দেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয় বলে দাবি করেছেন নির্যাতিতার পরিবার। একজন নারীসহ ৩ চিকিৎসকের দল ময়নাতদন্তের দায়িত্বে ছিলেন।

কিন্তু মঙ্গলবার ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে আসায় স্তম্ভিত হয়ে যান সকলে। জানা যায়, ধর্ষণের পর ওই মহিলার গোপনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে দেয় দুষ্কৃতীরা। সেই রক্তক্ষরণ আর বন্ধ করা যায়নি। তার জেরেই ওই মহিলার মৃত্যু হয়। এমনকি ভারী বস্তু দিয়ে নির্যাতিতার বুকেও আঘাত করা হয়। তাতে ভেঙে যায় তার পাঁজরের হাড়।

পুলিশ জানিয়েছে, মহিলার অবস্থা দেখে প্রথমে চন্দৌসিতে তাকে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যান অভিযুক্তরা। কিন্তু পরে ওই এলাকায় নির্যাতিতাকে গাড়ি থেকে ফেলে দেয়া হয়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ
কারিগরি সহযোগিতায়: শরিফুল ইসলাম
01779911004