বিনোদন পিপাসুদের মেলা হাতিরঝিলে

প্রকাশিত: জুলাই ২১, ২০২১

বুধবার (২১ জুলাই) হাতিরঝিল এলাকা সরেজমিন ঘুরে যায়, পরিবারের সদস্য ছাড়াও বন্ধু-বান্ধব নিয়ে দলে দলে লোক সেখানে ঘুরতে এসেছেন। পুলিশ প্লাজার পাশের নতুন মাঠে শতশত নারী-পুরুষ বসে গল্প করছিলেন। কেউ কেউ আবার ওয়াটার ট্যাক্সিতে ভ্রমণ করছিলেন। এ সময় যাদের কাছে মাস্ক ছিল না তাদের মধ্যে মাস্ক বিতরণ করা হয়। ঘুরতে আসা লোকজন তেজগাঁও, বাড্ডা, রামপুরা, কারওয়ান বাজার ও মগবাজার এলাকায় ওয়াটার ট্যাক্সিতে ঘোরাঘুরি করেন।

রাজধানীর অন্যতম দৃষ্টিনন্দন বিনোদনকেন্দ্র হাতিরঝিলে বিনোদন পিপাসুদের ভিড় জমেছে। এই ঈদে কোরবানি করার ব্যস্ততা থাকায় সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এখানে লোকসমাগম কম থাকলেও বিকেল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মানুষের ঢল নামে। এ সময় তারা ওয়াটার ট্যাক্সিকে ভ্রমণ ছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়ান। অন্যদিকে অনেকে টিকটক ও লাইকির জন্য শুটিং করেন। বিকেল থেকে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা পর্যন্ত এ দৃশ্য চোখে পড়ে।

শুধু হাতিরঝিলের আশপাশ নয়, রাজধানীর উত্তরা, টঙ্গী, লালবাগ, যাত্রাবাড়ী, দনিয়া, শ্যামপুর এমনকী রূপগঞ্জ থেকেও অনেকে এখানে ঘুরতে এসেছেন।

নারায়ণগঞ্জের রূপপুর থেকে তিনটি বাইকে ছয় বন্ধু ঘুরতে এসেছিলেন। তাদের একজন সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ‘লকডাউনের কারণে আমরা দীর্ঘদিন ধরে মোটামুটি ঘরবন্দি। তাই ঈদের দিনটিতে বেড়াতে এসেছি।’

রাজধানীর উত্তরা থেকে সপরিবারে ঘুরতে আসা কবির আহমেদ বলেন, ‘এখানে ঘুরতে আসতেও জ্যামে আটকা পড়তে হয়েছে। বিকেলে বিশ্বরোড থেকে রামপুরা পর্যন্ত জ্যাম ছিল। কিন্তু তবুও হাতিরঝিল এসে ভালো লাগছে।’

এখানে আজ প্রচুর লোকের সমাগম হওয়ায় ভ্রাম্যমাণ বিভিন্ন সামগ্রীর হাকারও বেড়ে গেছে। পানি, বাদাম, ফুল, আইসক্রিম, ডাবসহ নানা ধরনের খাবার বিক্রি করছেন তারা। কেউ কেউ আবার বেলুনসহ খেলার সামগ্রী নিয়ে বসেছেন।

এখানকার পানি বিক্রেতা আলী হোসেন বলেন, ঈদ উপলক্ষে আজ অনেক লোকের সমাগম হয়েছে। এজন্য পানিও বিক্রি হচ্ছে বেশি।

আলম কবির নামে এক টিকটকার জানালেন, তারা প্রায়ই বন্ধু বান্ধব নিয়ে হাতিরঝিলে শুটিং করেন। তবে ঈদ ও পহেলা বৈশাখেই বেশি আসেন তারা।