বাঁচতে চান রিয়াজ

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৯, ২০২১

এইচ আর সুমন, ভোলা : ভোলা সদর উপজেলার ২নং পূর্ব ইলিশা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের পশ্চিম সোনাডগী গ্রামের বাসিন্দা কাশেম মাতব্বরের ছেলে রাজমিস্ত্রী রিয়াজ মাতাব্বর (৩০) বাঁচতে চায়। চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তশালীদের সহায়তা চায় তার পরিবার।

জানা গেছে, চিকিৎসার জন্য এ পর্যন্তন প্রচুর টাকা খরচ হয়েছে। ৪ ভাই ১ বোনের মধ্যে রিয়াজ দ্বিতীয়। ছেলের চিকিৎসার জন্য গচ্ছিত সকল সম্পত্তি উজাড় করে দিয়েও কোন কিনারা পাচ্ছেন না তার পরিবার। বর্তমানে পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসার জন্য আরো প্রচুর টাকার প্রয়োজন। অর্থ সংকট এবং শারীরিক দুর্বলতার কারণে অপারেশন করানো যাচ্ছে না।

মো. রিয়াজ মাতব্বরের বড় ভাই পারভেজ সাইফ মাতাব্বর বলেন, আমার আব্বা কৃষিকাজ করেন। আমার ছোট ভাই (রিয়াজ) রাজমিস্ত্রির কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতো। গত ( ১ সেপ্টেম্বর) ঢাকার জহির উদ্দিন সিটির আফতাব নগরে বিল্ডিং এর বাহির সাইটে কাজ করার সময়, ছাদের উপর থেকে ইট পড়ে পুরো মাথা দিখন্ডিত এবং মাথার একাংশের হাড় ভেঙে ভিতরে ঢুকে যায়।

রিয়াজ মারাত্মকভাবে আহত ও অজ্ঞান হয়ে যায়। পড়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজের নিউরোলজি বিভাগে জরুরি ভাবে অপারেশন করানো হয়। কিন্তু রিয়াজের কোন জ্ঞান না ফিরায় ঢাকা মেডিকেল কলেজের নিউরোলজি বিভাগে আবারও তার অপারেশন করানো হয়। আমাদের পরিবার আর্থিকভাবে অসচ্ছল থাকায় ঢাকার বিভিন্ন এলাকা থেকে এবং নিজ গ্রামের লোকদের কাছ থেকে ধার দেনা করে কয়েক লাখ টাকা তার পিছনে চিকিৎসা বাবদ ব্যয় করা হয়।

রিয়াজ এখনো পরিপূর্ণ ভাবে সুস্থ হয়নি। পরবর্তীতে ঢাকার পিজি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। তবে রিয়াজ তার স্বাভাবিক জীবনে এখনো ফিরতে পারেনি । গত ২২দিন ধরে রিয়াজের অবস্থা খুবই সংকটাপন্ন। তবে অত্যন্ত দুঃখের বিষয় হল টাকার অভাবে রিয়াজের কোনভাবেই চিকিৎসা হচ্ছে না। ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী রিয়াজকে আবারও অপারেশন করানো প্রয়োজন। এতে কয়েক লাখ টাকা তার চিকিৎসা বাবদ খরচ হতে পারে। কিন্তু পরিবারের পক্ষে কোনভাবেই এত টাকা সংগ্রহ করা সম্ভব হচ্ছে না ।

আমার ছোট ভাই নম্র, ভদ্র ও ভালো ছেলে হিসেবে এলাকায় সুনাম রয়েছে। আমার জানা মতে ভাই কখনো কারো ক্ষতি করেনি। তাহলে ভাই টার সাথে এমন টা কেন হলো তা আল্লাহ তাআলাই ভালো জানেন। রিয়াজের চিকিৎসার জন্য আমাদের পরিবারের যা কিছু ছিলো সব ব্যয় করা হয়েছে। এখন অর্থ সংকটে চিকিৎসার ব্যয় নির্বাহ করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। দৈনিক ঔষধ কেনার মত টাকা এখন আর আমাদের হাতে নেই। আমার ভাই এখন বাড়িতেই আছে। টাকার অভাবের কারণে ঢাকা অপারেশন করতে নিতে পারতাছিনা। রিয়াজের চিকিৎসার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন।

মানবিকতার দৃষ্টিতে এবং আমাদের একজন (ভাই বা বোন) হিসেবে যার যার জায়গা থেকে যতটুকু সম্ভব সাহায্য করলে তার চিকিৎসা চালিয়ে যেতে পারবো। আমি সমাজের মানবিক ও বিত্তশালীদের প্রতি অনুরোধ করবো আপনাদের সামান্য সহযোগিতায় হয়তো আমার ভাইটার অপারেশন করাতে পারলে ছোট ভাইটি আবার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারবে ইনশাআল্লাহ।

যোগাযোগ করুন রিয়াজ মাতব্বরের বড় ভাই পারভেজ সাইফ বাড়ীর নাম মাতব্বর বাড়ী। পূর্ব ইলিশা উম্মে কুলসুম হাফিজিয়া মাদ্রাসার সামনে।
বিকাশ ও রকেট নাম্বারঃ 01700633073